ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট কি সত্যিই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে?

ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট কি সত্যিই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে?

ফেসবুকে ঢুকতেই পুরো নিউজফিড জুড়ে দেখি একটা ভাইরাল খবর: ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট নাকি আগামী ২২ তারিখ থেকে বন্ধ করে দিচ্ছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ! দেখেই চক্ষু চড়ক গাছ। এটা গুজব নাকি নিশ্চিত হবার জন্য গুগলে সার্চ দিলাম ‘ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট বন্ধ’ লিখে। রেজাল্টে দেখি সত্যিই দেশের প্রথম সারির দশেরও অধিক পত্রিকা এই নিয়ে নিউজ করেছে! কৌতুহলবশত প্রথম নিউজটাতেই ঢুকলাম। দেখলাম তারাও একই তথ্য দিয়ে নিউজ করেছে! কিন্তু সৌভাগ্যবশত ওই নিউজেই পেয়ে গেলাম এই বিষয়ে ফেসবুক কর্তৃপক্ষের প্রকাশ করা বিজ্ঞপ্তিটির লিংক। লিংকে গিয়ে ফেসবুকের বিজ্ঞপ্তিটা পড়লাম। বিজ্ঞপ্তিটা পড়ে টানা চৌদ্দ মিনিট হেসে নিয়ে এই পোস্ট লিখতে বসেছি! কেন হেসেছি, সেই কথাতে যাবার আগে এই বিষয় নিয়ে নিউজ করা নিউজ পোর্টগুলোর চেহারা-সুরত এবং নামের লিস্ট একটু দেখে আসি চলেন।
গুগল সার্চ রেজাল্ট!
গুগল সার্চ রেজাল্ট!
গুগল সার্চ রেজাল্ট!
গুগল সার্চ রেজাল্ট!
গুগল সার্চ রেজাল্ট!
অখ্যাত পোর্টালগুলোসহ ধরলে এই লিস্টটা আরও লম্বা করা যেত।  এই লিস্টে সব নিউজ সাইট একই পোস্টকে একটু এদিক-সেদিক করে, হালকা মাল-মসলা লাগিয়ে কপি পেস্ট করেছে। কিন্তু হাস্যকর ব্যাপার হলো, এটা আদতে ভুল কিংবা ভুয়া নিউজ। বিষয়টা হয়তো এমন, মাথায় গোবরওয়ালা কোনো হলুদ অনলাইন সাংবাদিক সম্ভবত, ইংরেজি পড়তে না জেনে, ইংরেজির অর্থ না জেনে, ফেসবুকের বিজ্ঞপ্তিটার অর্থ ঠিকমতো না বুঝে, নিউজ করেছে: ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে! তার দেখাদেখি অধিকাংশ নিউজ পোর্টালই একই নিউজ কপি পেস্ট করে দিয়েছে! হাস্যকর হলেও সত্যি, যুগান্তরের মতো নামকরা পত্রিকাও এমন ভুলভাল নিউজ করছে, অথচ তাদের নিউজেই ফেসবুকের বিজ্ঞপ্তিটার লিংক দেওয়া আছে! তারা নিজেরাই নিউজ করার আগে বিজ্ঞপ্তিটা একবারও পড়েনি হয়তো! অবশ্য দুয়েকটা নিউজ পোর্টাল সঠিক নিউজও করেছে। সেগুলো হলো:
ফেসবুকের বিজ্ঞপ্তি!

ফেসবুক গ্রুপ চ্যাট বন্ধের সত্যতা:

আদতে ফেসবুকের ওই বিজ্ঞপ্তির শিরোনাম ছিল, ‘Chats in Facebook Groups will no longer be available’ অর্থাৎ ফেসবুক গ্রুপের চ্যাট অপশন আর থাকবে না।  [এটা ফেসবুক গ্রুপগুলোতে থাকা চ্যাট অপশন, ফেসবুক মেসেঞ্জারের চ্যাট গ্রুপ বা গ্রুপ চ্যাট নয়।] কিন্তু আমাদের মূর্খ হলুদ সাংবাদিকরা ভুল অনুবাদ করে নিউজ করলেন, ফেসবুকের গ্রুপ চ্যাট মানে মেসেঞ্জারের চ্যাট গ্রুপ আর থাকবে না! এই ভুয়া নিউজ আমাদের ফেসবুকবাসীও দেদারসে গিলেছে এবং এটা গুজব আকারে ছড়িয়েও পড়েছে। অবশ্য যে জাতি কল্লা কাটা গুজব ছড়িয়ে মানুষ মারতে পারে, তাদের কাছে এর চেয়ে ভালো আর কী আশা করা যায়! তবুও সংবাদ মাধ্যমগুলোর দায়বদ্ধতা ও সাংবাদিকগুলোর যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়! যাই হোক,  আসল বিষয়টা হলো গত বছর ফেসবুক একটি ফিচার আনে ফেসবুকের গ্রুপগুলোতে। সেই ফিচারের মাধ্যমে ফেসবুক গ্রুপের মধ্যে থাকা মেম্বাররা মিলে চ্যাট গ্রুপ তৈরী করে কথা বলা যেত। গ্রুপ সেটিংসে একটা অপশন আছে, গ্রুপে এই চ্যাট তৈরী করার ক্ষমতা শুধু গ্রুপ অ্যাডমিনদের হাতে থাকবে নাকি মডারেটর, মেম্বার সবাই তৈরী করতে পারবে; সেই অপশন। তো এই ফিচারটি খুব একটা ব্যবহৃত না হওয়ায় এবং ব্যবহারকারীদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে ফেসবুক গত ১৬ই আগস্ট সেটিকে বন্ধ করে দেয়। এরপর গতকাল একটি বিজ্ঞপ্তিতে ফেসবুক ফিচারটি বন্ধ হওয়ার খবর জানায় এবং সাথে আরও বলে, বর্তমানে যেসব ফেসবুক গ্রুপে চ্যাট তৈরী করা আছে, ওগুলো ২২শে আগস্ট অকেজো হয়ে যাবে। তখন শুধুমাত্র পুরোনো মেসেজগুলো পড়া যাবে, নতুন কোনো মেসেজ দেওয়া যাবে না। [ফেসবুকের বিজ্ঞপ্তিটি পড়ুন।] তো, মূলকথা যেটা দাঁড়ায় তা হলো, ফেসবুক গ্রুপের চ্যাট অপশন বন্ধ হচ্ছে, ফেসবুক মেসেঞ্জারের গ্রুপ চ্যাট বন্ধ হচ্ছে না, সেটা আগের মতোই বহাল তবিয়তে থাকবে! ভুল নিউজ ছড়িয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করবেন না।

আরও পড়ুন: বিবর্তন : আপনি কেন বিশ্বাস করবেন না?

Facebook Comments
পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন: