আপনার কেন একটি নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকা প্রয়োজন?

আপনার কেন একটি নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকা প্রয়োজন?
 

আপনার কেন একটি নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকা প্রয়োজন?

আপনার ব্যবসাটি একটি লোকেশনে অবস্থিত যা ওই এলাকার বা আশে পাশের দুই একটা এলাকার পরিচিত। কিন্তু বর্তমানে যে যেখানেই বসবাস করুন না কেন মোটামোটি সবাই কিন্তু অনলাইনে সংযুক্ত। সেটা হতে পারে ফেসবুক বা কোন কিছু প্রয়োজন হলে গুগলে সার্চ দেয়া, ইত্যাদি। সেক্ষেত্রে আপনার ব্যবসার কোনো তথ্য বা আপনার পণ্যটির তথ্য যদি দেওয়া থাকে অনলাইনে সেক্ষেত্রে যে কেউ আপনার পণ্যটির সম্বন্ধে অনলাইন থেকে জেনে গেল এবং চাইলে সে অনলাইনেই পণ্যটি ক্রয়ও করতে পারবে। আর এইসব তথ্য দিয়ে যেটি সাজানো হয় সেটাই হলো ওয়েবসাইট। প্রত্যেক ব্যবসার জন্যই একটি নিজস্ব ওয়েবসাইট থাকা আবশ্যক।

কারণ আপনি যে ব্যবসা বা চাকুরি যাই করেন না কেন বেশি আয় করতে হলে আপনার বেশি বেশি কানেকশন বাড়াতে হবে। আর কানেকশন বাড়ানোর সবচেয়ে ভালো উপায় হলো আপনার বা আপনার ব্যবসা সম্পর্কে ইন্টারনেটে জানানো। কারণ মানুষ এখন কারও সাথে যোগাযোগ বা ব্যবসা করতে চাইলে সাথে সাথেই অনলাইনে সার্চ করে।

ধরুন, আপনি একটি রেস্টুরেন্টের মালিক। আপনার শহরে কেউ যদি জানতে চায় যে সেখানে সবচেয়ে ভালো রেস্টুরেন্ট কোনটি, তখন সে গুগল এ গিয়ে হয়তো সার্চ দেবে এই লিখে:  best restaurant in dhaka. best restaurant in ctg.

এখন আপনার যদি কোনো ওয়েবসাইট না থাকে তবে সে আপনার রেস্টুরেন্ট সম্পর্কেও জানতেও পারবে না আর এই না জানার কারণে আপনি আপনার রেস্টুরেন্টের গ্রাহকও হারাবেন। যে রেস্টুরেন্টের ওয়েবসাইট আছে, গ্রাহক সেটাকে খুঁজে পাবে এবং ওইটাতেই খেতে যাবে বা অনলাইনেই খাবার অর্ডার করবে।

যুগ বদলাচ্ছে, চলছে ডিজিটাল বিপ্লব। এমন সময়ে আপনি যদি যুগের সাথে তাল না মেলান, তবে ব্যবসায় কিংবা কর্মক্ষেত্রে টিকে থাকতে পারবেন না। আর মাত্র ১৫-২০ বছরের মধ্যে হয়তো পৃথিবীতে আনক্রিয়েটিভ কমার্শিয়াল কাজে মানুষের ছুটি হয়ে যাবে। মানুষের জায়গায় কাজ করবে আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স। এমন অবস্থায় আপনি যদি ডিজিটালাইজেশনের সাথে অভিযোজিত না থাকেন, তবে মার্কেট থেকে ছিটকে পড়বেন, হয়ে যাবেন দেউলিয়া। কিছু উদাহরণ দিই–

এক সময়ের বিখ্যাত কোডাক ক্যামেরা কোম্পানি। ডিজিটাল ক্যামেরার উদ্ভব দেখেও, সতর্ক হয়নি এই এনালগ ক্যামেরা কোম্পানিটি। ফলে মাশুল গুনতে হয়েছিল বিলিয়ন ডলারের কোম্পানি হারিয়ে!

এরপর সবারই পরিচিত নোকিয়া মোবাইল কোম্পানি। অ্যান্ড্রোয়েড অপারেটিং সিস্টেম আসার পরও তারা থেকে গেছিল তাদের সনাতন সিস্টেমে। শেষমেষ এক সময়ের তুমুল জনপ্রিয় এই সেলুলার মোবাইল কোম্পানিকে মালিকানা-ই বেচে দিতে হয়েছে। এখন অবশ্য তারা অ্যান্ড্রোয়েড অপারেটিং সিস্টেমের স্মার্টফোনে ঝুঁকেছে নতুন মালিকানায়!

নিজের ওয়েবসাইট থাকার সুবিধা:

১। সহজে ব্যবসা বা প্রতিষ্ঠানের প্রসার। বেশি সংখ্যক মানুষের কাছে পৌঁছানো।

২। ই-কমার্সের মাধ্যমে পণ্যের বিক্রি কয়েকগুন বাড়িয়ে দেওয়া।

৩। ব্যবসায়িক প্রতিযোগিতায় এগিয়ে থাকা।

৪। ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ব্যবসা ছাড়াও মাল্টিপল ওয়েতে ইনকাম জেনারেট করা।

ইনকামের উপায়: গুগল এডসেন্স, গুগল এডমব, অ্যামাজন অ্যাফিলিয়েট, সিপিএ মার্কেটিং, লোকাল অ্যাড, ফেসবুক ইন্সট্যান্ট আর্টিকেল, ফেসবুক ভিডিও মনিটাইজেশন, ইন্সটাগ্রাম মার্কেটিং, টুইটার মার্কেটিং।

[বিস্তারিত পড়ুন এখানে:  নিজের ওয়েবসাইট থেকে কীভাবে বড় অঙ্কের টাকা আয় করবেন?]

আরও পড়ুন: ব্লগিং করে আয় করা কি আসলেই সম্ভব?

এখন প্রশ্ন হলো ওয়েবসাইট কীভাবে বানাবেন?

– আপনি নিজে যদি না পারেন,  আপনাকে ওয়েবসাইট বানাতে শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সম্পূর্ণ সহযোগিতা করব আমরা! বিজ্ঞান নিউজ টিমের সাহায্যে সাশ্রয়ী মূল্যে নিজের ওয়েবসাইট তৈরী করে নিতে চাইলে আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন! আমাদের ব্লগ মেকিং প্যাকেজটি দেখুন। 

 

 

Facebook Comments
পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন: