কোনটা নিবেন? ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ!

কেউ নতুন কোন কম্পিউটার কেনার কথা চিন্তা করলে প্রথম মাথায় আসে ডেস্কটপ নাকি ল্যাপটপ! অনেকে আবার দ্বিধায় ভুগেন এই বিষয়টা নিয়ে। আশা করি এই লেখাটি আপনাকে সাহয্য করবে।

কম্পিউটার কেনার আগে আপনাকে ভাবতে হবে কেন কিনছেন কম্পিউটার! যদি অফিশিয়াল কাজে ব্যবহার করতে চান । এই যেমন মেইল চেক , গান , লেখালিখি, গান শোনার জন্য যদি কম্পিউটার কিনতে চান তবে ল্যাপটপ হবে বেস্ট। এ ক্ষেত্রে সব চেয়ে যে সুবিধা পাওয়া যাবে তা হলো আপনি প্রয়োজন মতো নিয়ে বেড়াতে পারবেন। আপনি ঘরে যদি সময় না পান আর ভ্রমণপিপাসু হন তবে অবশ্যই নিন ল্যাপটপ।

ল্যাপটপের সুবিধা অসুবিধাঃ

সব কিছুরই ভালো ও মন্দ দুটি দিকই রয়েছে। প্রথমে অসুবিধার কথাই বলা যাক।
স্থায়িত্বঃ ল্যাপটপ বহনযোগ্য বলে বেশি নাড়াছড়া করা হয় এতে এর কোন যন্ত্রাংশ ভেঙ্গে গেলে তা তা পাওয়া যায়না। আর গেলে ও তা বেশ বায়বহুল।
কার্যক্ষমতাঃ ল্যাপটপ পিসির তুলনায় ডেক্সটপ পিসি বেশি কার্যকরী হয়ে থাকে। ডেক্সটপ পিসির সমান কার্যকরী ল্যাপটপ পিসি বেশ বায়বহুল।
কম্পাবিলিটিঃ মডেল, নির্মাতা, কোম্পানিভেদে ল্যাপটপের যন্ত্রাংশগুলোর মাঝে বেশ তারতম্য রয়েছে। যেগুলোর একটি আরেকটিকে সাপোর্ট করে না। তাই কোন যন্ত্রাংশ নষ্ট হলে সেই যন্ত্রাংশ খুজে পাওয়া বেশ কষ্টকর ও বায়বহুল।
আপগ্রেডঃ ডেক্সটপের যন্ত্রাংশ যখন- তখন আপগ্রেড করা যায়। কিন্তু ল্যাপটপের ক্ষেত্রে তা ভীষণ ঝামেলার ব্যাপার। প্রসেসর, মাদারবোর্ড, ডিসপ্লে, গ্রাফিক্স কার্ড আপগ্রেড করা যায় না। তবে রাম, হার্ডডিস্ক ও অপটিক্যাল ড্রাইভ ইত্যাদি আপগ্রেড করা যায়।

ল্যাপটপ বনাম নোটবুকঃ

ল্যাপটপ কিনবেন না নোটবুক কিনবেন? ল্যাপটপ ও নোটবুক এর মধ্যে অনেক পার্থক্য রয়েছে। অনেকে মনে করতে পারেন দুটোই তো একই জিনিস। আবার অনেকেমনে করতে পারেন নোট আকারের ল্যাপটপগুলোকেই নোটবুক বলে। নোটবুক ল্যাপটপের ছোট ভার্সন। এদের মধ্যে বেশ পার্থক্য রয়েছে। ল্যাপটপ ও নোটবুক এর পার্থক্য ভালো ভাবে বোঝার জন্য পাঠকদের জন্য তা নিম্নে তুলে ধরা হলঃ

আকারঃ ল্যাপটপের আকার বড় বা মাঝারী হয়। অপরদিকে নোটবুক এর আকার ছোট হয়।
প্রসেসরঃ ল্যাপটপের প্রসেসর ইন্টেল সেলেরন থেকে কোর আই সেভেন হয় অপরদিকে নোটবুক এর প্রসেসর ইন্টেল অ্যাটম, সেলেরন হয়।
হার্ডডিস্কঃ ল্যাপটপের প্রসেসর বেশিধারণক্ষমতা সম্পন্ন ৫৪০০-৭২০০ আরপিএম গতির হার্ডডিস্ক অপরদিকে নোটবুকের কম ক্ষমতার সলিড স্ট্রিট হার্ডডিস্ক।
ডিসপ্লেঃ ল্যাপটপের ডিসপ্লে ১৩-২০ ইঞ্ছি ও নোটবুকের ডিসপ্লে ১৩ ইঞ্ছি এরকম হয়। গ্রাফিক্স কার্ডঃ এনভিডিয়া বা ইন্টেল চিপ সেটের কার্ড থাকে ল্যাপটপে। আর নোটবুকে সাধারণ উপযোগী নুন্নতম গ্রাফিক্স কার্ড।

ডিস্ক ড্রাইভঃ ডিভিডি রম থাকে আর নোটবুকে থাকে না।

বিদ্যুৎ শক্তিঃ ল্যাপটপে বিদ্যুৎ শক্তি বেশি খরচ হয় আর নোটবুকে খুব কম হয়।

ব্যাটারি লাইফঃ ল্যাপটপে ৩-৮ ঘণ্টা আর নোটবুকে ৩-১২ ঘণ্টা।

ভারি কোন কাজ কাজ করতে এবং অনেক ক্ষণ ব্যবহারের ক্ষেত্রে ডেস্কটপ  নেয়াটাই বুদ্ধিমানের কাজ হবে। আর গেমিং এর ক্ষেত্রে কোন কথায় নেই।

Facebook Comments