কেমন হবে ভবিষ্যতের রোবট!

কেমন হবে ভবিষ্যতের রোবট!
 

ভবিষ্যতের রোবট কেমন হবে কেউ কি ভেবে দেখেছেন কখনো? রোবটই এখন মানুষের বর্তমান আর ভবিষ্যৎ। মানুষের এমন মনে হতেই পারে এক সময় রোবট এত বুদ্ধিমত্ত্বা অর্জন করবে যে, মানুষের আর রোবটে একটা যুদ্ধ হবে। আর সেই যুদ্ধে মানুষ হেরে যাবে। বর্তমানে রোবট আমাদের কাছে খেলনা হলেও কিছু শক্তিশালী রোবট বিজ্ঞানীরা আবিষ্কার করেছেন যা দিয়ে এমন কাজ করানো হচ্ছে যেটা মানুষ পারবে না। এমন একটি রোবট সোফিয়া। সোফিয়া মানুষের মতোই কথা বলতে পারে। হাঁটা-চলা হুবহু মানুষের মতো। আর কথা বলার সময় মুখের ভাবভঙ্গিও করতে পারে। এমন আরও একটি রোবট asimo। তিনটি ভাষায় কথা বলতে পারে এই রোবট। আপনার নির্দেশ অনুযায়ী কাজ করতে পারবে এই রোবট। গান দিলে নাচতেও পারে।

এই তো গেল বর্তমান রোবটের কথা। ভবিষ্যতে কী হতে যাচ্ছে রোবটের! রোবটের এই তুমুল বিপ্লব সম্ভব হয়েছে মূলত আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স এর প্রভাবে।

কেমন হবে ভবিষ্যতের রোবট!
কেমন হবে ভবিষ্যতের রোবট!

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কী?

সহজ ভাষায় কম্পিউটার যাতে চিন্তা-ভাবনা করে নিজে নিজে কিছু করতে পারে, যেকোনো ছবি দেখে চিনতে পারে এই জন্য যে বিজ্ঞান কাজ করে তার নাম আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স কতগুলো বিষয়ের সমষ্টি । তার মধ্যে Natural Language Processing, Knowledge Representation, Automated Reasoning, Machine Learning, Computer Vision, Robotics অন্যতম। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স বর্তমানে পৃথিবীর সবচেয়ে সম্ভাবনাময় প্রযুক্তি। আবার মানুষের জন্য বিপজ্জনকও হয়ে উঠতে পারে এটি!

ধারণা করা হয় ভবিষ্যতে মানুষ কাজ করতে পারে এমন সব জায়গায় রোবট কাজ করবে। যেমন: ধরা যাক একজন ডাক্তার। শুধুমাত্র মানুষই ডাক্তার হয় আমরা দেখেছি। তবে ইতোমধ্যে ‘শিওয়াই’ নামে একটি রোবট মেডিকেল এর পরীক্ষা দিয়ে পাশ করে ফেলেছে। এরপরে আসে সেলস ম্যান। ধরা যাক, ফার্মেসিতে যারা কাজ করে তারা অনেক সময় ওষুধ দিতে ভুল করে ফেলে আর সেই ভুল ওষুধ খেয়ে রোগী মারা যায়। কিন্তু রোবট যদি হয় ফার্মাসিস্ট তবে এমন ভুল হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই।

 

এবার আসা যাক সার্জন রোবটের কথায়। 2024 সালের মধ্যে এমন একটা রোবট আসবে যে কিনা আপনার খাদ্যনালী দিয়ে ঢুকে স্টুমাকে ঘুরে বেড়াতে পারবে। এই রোবটটির নাম Ingestible Robot। ২০১৬ সাল থেকে চলছে এই রোবটের গবেষণা। দুই সেন্টিমিটার লম্বা এই রোবটটি অনায়াসেই মানুষের শরীরে প্রবেশ করে অভ্যন্তরীণ ঘা, নির্দিষ্ট কোনো জায়গায় ওষুধ প্রয়োগের কাজ করতে পারবে।

 

ভবিষ্যতে বিয়ে হবে রোবটের সাথে এমনটাই ধারণা বিজ্ঞানীদের। যদি কেউ মনে করেন নিজের পছন্দ মতো একটা রোবট বানিয়ে নেবেন তাও সম্ভব হবে রোবটের মাধ্যমে। “Should Robots Feel” গ্রন্থের লেখক জেসন নেমেথ এর মতে, ভবিষ্যতে মানুষের সকল চাহিদা মেটাতে সক্ষম হবে এমন প্রেমিক রোবটের অস্তিত্ব যথেষ্টই যৌক্তিক। তিনি নিশ্চিত নন দুইজন মানুষের মাঝে প্রেমের চাইতে মানুষ-রোবট প্রেম অধিক সফল হবে কিনা কিন্তু এ ব্যাপারে মানুষের অভিজ্ঞতাই ভবিষ্যতের পথ ঠিক করে দেবে। কার্নেগী মেলন ইউনিভার্সিটির হ্যান্স মোরাভেক এর ধারণা ২০২০ সালের মাঝেই মানুষের মতো অবয়বের রোবট তৈরি করা সম্ভব হবে। তারা জ্বালানী হিসেবে ওয়াইন পান করবে, মানুষের মতো বাতাসে নিঃশ্বাস নেবে আর দেখতেও মানুষের মতই হবে। এমন অভিনব ডিজাইনে তাদেরকে তৈরি করা হলে তাদের প্রতি বন্ধুসুলভ আচরণ করাটা মোটেও কঠিন হবে না বলে মনে করেন লেখক রে কুর্যওয়েল। আর মানুষের মাঝে ইতিবাচক অনুভূতি ফুটিয়ে তোলার ব্যাপারেও এই রোবটেরা পারদর্শী হবে যার ফলে এদের প্রতি মানুষের আকর্ষণ হবে অসামান্য। Love and Sex with Robots এর লেখক ডেভিড লেভি মনে করেন, রোবটের বৈশিষ্ট্য যতই মানুষের মতো হতে থাকবে, রোমাঞ্চপ্রেমী মানুষেরা ততই রোবটের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে জড়িয়ে পড়া শুরু করবে। সঙ্গী হিসেবে রোবট হবে নিখুঁত। কখনোই তারা বিরক্তি দেখাবে না বা অমনোযোগী হবে না। এদের মাঝে প্রোগ্রামিং করে বিশ্বস্ততা নিশ্চিত করে দেওয়া হবে ফলে তারা কখনই আপনাকে ছেড়ে যাবে না।

 

এমনকি পাওয়া যাবে বাচ্চা রোবট । এই রোবত আচরণ করবে বাচ্চাদের মতোই।

যারা রোবট মুভিটি দেখেছেন তারা দেখেছেন রোবট তৈরী করছে রোবট। সেদিন আর বেশি দেরি নেই। যুদ্ধক্ষেত্রে যাওয়ার জন্য তৈরী হচ্ছে রোবট। আচ্ছা এমন তো এক সময় হয়ে যেতেও পারে। রোবট যুদ্ধ করবে মানূষের সাথে। ভবিষ্যতের রোবট নির্ধারণ করবে মানূষের ভবিষ্যৎ।

আরও পড়ুন: আয়নার ওপাশে : প্রযুক্তিজীবী লালসালুদের নেপথ্য গল্প!

Facebook Comments
পোস্টটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন: