কার্বলিক অ্যাসিডের গন্ধে সাপ পালিয়ে যায় ?

মানুষের চোখ বন্ধ করার সিস্টেম আছে কিন্তু কান বন্ধ করার কোন সিস্টেম নাই। তার জন্য হাতের সাহায্য প্রয়োজন । টিভিতে দেখা যায় সাপ বিনের শব্দে দৌড়াতে দৌড়াতে চলে আসে । আসলে সাপ ভালো করে শুনতেই পায় না । কারণ সাপের কান নেই। কোন বিপদ আশেপাশে থাকলে সাপ ঘন ঘন জিহ্বা বের করে । সে যা হোক আমরা আসলে কান নিয়ে কথা বলবো না । কথা বলবো নাক নিয়ে । মানে অনেকেই বলে থাকে কার্বলিক এসিড দিয়ে রাখলে সাপ আসেনা বিষয়টা কত খানি সত্য!

প্রাণি বিশেষজ্ঞ ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) প্রাণি বিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিধান চন্দ্র দাস এমন তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, কার্বলিক অ্যাসিড সাপের উপরের কোন প্রতিক্রিয়াই সৃষ্টি করতে পারে না। এ ধরনের গবেষণায় দেখা গেছে যে, সাপের কাছে কার্বলিক অ্যাসিডের বোতল রেখে দিলে দেখা যায় যে সাপ ওই বোতল পেঁচিয়ে বসে আছে। কার্বলিক অ্যাসিডের গন্ধে সাপের কিছুই যায় আসে না।

যারা বাড়ির আশেপাশে সাপের আনাগোণা দেখে কার্বলিক অ্যাসিড ছিঁটিয়ে নিশ্চিন্তে বসে থাকেন তারা আরো বেশি ভুল করছেন বলে জানিয়েছেন তিনি।

কার্বলিক অ্যাসিড একটি পয়েজন । এর কারণে যে কোন সময় ঘটতে পারে দুর্ঘটনা । সুতরাং সাপ  তাড়াতে এই কার্বলিক অ্যাসিডের ব্যবহার না করাই ভালো ।

অনেকে মনে করে সাপ মারলে অন্য সাপেরা বা ওই সাপ বেঁচে গেলে প্রতিশোধ নিতে আসে কথাটি মোটেও সত্য নয় কারণ সাপের স্মৃতি শক্তি এতোটা প্রখর না । তাদের স্মৃতিশক্তি খুবই কম ।

সাপ হাসনাহেনা বা অন্য কোন ফুলের গন্ধ পেয়েও আসেনা । বাড়ির আশপাশে ঝোপ ঝাড় থাকলে সাপ সে জায়গা গুলোতে থাকতে পছন্দ করে। আর বর্ষাকালে সাপ উচু জায়গায় উঠে আসতে চায় তাই ভয় না পেয়ে সাবধান থাকুন । আর বেশিরভাগ সাপেরই বিষ বলে কিছু থাকেনা। সাপ দেখলেই মেরে ফেলবেন না । সাপ বাস্তুতন্ত্রের অংশ। সাপ আমাদের পরিবেশেরই অংশ । সাপকে ওঝাদের হাতে তুলে দেবেন না। ওঝারা সাপ দিয়ে বিভিন্ন ব্যথা নাশক তেল বানায় যা চিকিৎসার নামে অপচিকিৎসা বেশি হয় । মনে রাখবেন সাপ একটি নিরীহ প্রাণী।

আরও পড়ুনঃ সায়েন্স ফিকশন : ইটি

Facebook Comments